ছাত্রলীগের বাধায় ফিরে গেল বঙ্গবীর

টাঙ্গাইল শহরের শহীদ মিনারে একই স্থানে ছাত্রলীগের পাল্টা সভা ডাকায় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর পথসভা পণ্ড হয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার(৮ নভেম্বর) বিকেল ৪টায় স্থানীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে পথসভা করার কথা ছিল কাদের সিদ্দিকীর। জাতীয় ঐক্যফন্টে যোগ দেয়ার পর টাঙ্গাইলে পথসভার কথা ছিল কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের এই নেতার। কিন্তু সেটা তিনি করতে পারেনি।

পাল্টা-পাল্টি সভা ডাকার জের ধরে শহরের পৌর উদ্যানসহ বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেছে জেলা পুলিশ প্রশাসন। ছাত্রলীগের দাবি, তারা কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে কোনো পাল্টা সভা ডাকেনি। ঘটনাস্থলে তাদের পূর্বনির্ধারিত সভা ছিল।

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম জানান, ঢাকা থেকে টাঙ্গাইলে ফেরার পথে কাদের সিদ্দিকী শহরের শহীদ মিনারে পথসভা করতে চেয়েছিলেন।

মির্জাপুরের গোড়াই পাড় হয়ে খবর পাওয়া যায়, শহীদ মিনারে ছাত্রলীগের লোকজন দখল করেছে। এসময় পুলিশও শহীদ মিনার ও আশপাশে অবস্থান নেয়।

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভার জন্য মাইক টানাতে বাধা দেয় ছাত্রলীগের লোকজন। কিন্তু কাদের সিদ্দিকী কোনো অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে দিতে চাননি। তাই তিনি সেখানে পথসভা করতে যাননি।

জেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে স্বাগত জানাতে আগে থেকে ছাত্রলীগ একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে শহীদ মিনারে। সেখানে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কোনো পথসভা ছিল বলে জানা ছিল না।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক সায়েদুর রহমান বলেন, কাদের সিদ্দিকীর বক্তব্য দেয়ার মতো পরিবেশ সেখানে ছিল না। এজন্য হয়তো তারা পথসভা করেনি। নিরাপত্তার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সেখানে মোতায়েন ছিল।

গুলশানে বসেছে ২০ দল, যুক্ত হতে পারে আরও ২ দল

ঢাকা : ২০ দলীয় জোটের বৈঠক চলছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক শুরু হয়।

এদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর এই প্রথম ২০ দলের বৈঠকে যোগ দিয়েছেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি) সভাপতি অলি আহমেদ।

আজকের বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান, জামায়াতের মাওলানা আব্দুল হালিম, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, কল্যাণ পার্টির মেজর জেনারেল (অব.) ইবরাহিম,

বিজেপির ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, এলডিপির ড. রেদওয়ান আহমেদ, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাপার মোস্তফা জামাল হায়দার,

জাগপার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান, লেবার পার্টির একাংশের সভাপতি ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ইসলামী ঐক্যজোটের অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শাওন সাদেকী প্রমুখ উপস্থিত রয়েছেন।

বৈঠক শেষে বিএনপির এ জোটে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি এবং পিপলস পার্টি অব বাংলাদেশ এ দুটি দল যুক্ত হবে বলে বিএনপি সূত্রে জানা গেছে।

Updated: November 9, 2018 — 1:51 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Reviewever © 2018 Frontier Theme